,
শিরোনাম
ঢাকাদক্ষিণ কলেজে বঙ্গবন্ধুর ছবি মাটিতে ফেলা নিয়ে উত্তেজনা মৌলভীবাজারে বারুদের তাপে খসে পড়ল পুলিশের আঙুল ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের নির্বাচন ফেব্রুয়ারীতে জন্মদিনে যা যা করলেন নন্দিত অভিনেত্রী শাবনুর হবিগঞ্জে আনসার সমাবেশ ও পুরস্কার বিতরণ আব্দুল বাসিত বরকতপুরীর জানাজা সম্পন্ন: মানুষের ঢল মাদ্রাসার ভূমিতে পাবলিক টয়লেট নির্মাণ নিয়ে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন: কঠোর কর্মসূচী আল আমিন জামেয়ায় হাফেজ নিয়োগ ও হিফজ বিভাগে ভর্তি চলছে সিলেট ক্যামব্রিয়ান স্কুল এন্ড কলেজে বিজয় দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত দিরাইয়ে প্রেমিকের ছুরিকাঘাতে স্কুলছাত্রী খুন শাবিপ্রবি ইংরেজি বিভাগের বিজয় দিবস উদযাপন সিলেটের প্রবীণ আলেম বরকতপুরীর ইন্তেকাল : আলিয়া মাঠে জানাজা

কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ চালু করতে চুক্তি

Railway_Station-300x178

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: কুলাউড়া-শাহবাজপুর রেলপথ পুনরায় চালুর জন্য ভারতীয় প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পুনর্বাসন চুক্তি করেছে সরকার।

চুক্তি অনুযায়ী, ৫৪৪ কোটি ৮৬ লাখ ৭৭ হাজার ৬৪০ টাকা ব্যয়ে ৫২ দশমিক ৫৪ কিলোমিটার রেলপথ পুনর্বাসন করা হবে।

বুধবার রাজধানীর রেলভবনে বাংলাদেশ রেলওয়ে এবং ভারতের কালিন্দী রেল নির্মাণ (টেক্সমাকো রেল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং লিমিডেটের একটি বিভাগ)-এর সঙ্গে এই চুক্তি হয়। চুক্তিতে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক (পূর্ব) আব্দুল হাই ও টেক্সমাকো রেল অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ভাইস প্রেসিডেন্ট শারদ শর্মা স্বাক্ষর করেন।

এ সময় রেলপথ মন্ত্রী মুজিবুল হক ও বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

চুক্তি অনুযায়ী ২ বছরের মধ্যে রেললাইনের পুনর্বাসনের কাজ শেষ হবে।

চুক্তি অনুষ্ঠানে জানানো হয়, রেলওয়ের ৪৪ দশমিক ৭৭ কিলোমিটার মেইনলাইন ও ৭ দশমিক ৭৭ কিলোমিটার লুপ লাইন পুনর্বাসন করা হবে।

চুক্তি অনুযায়ী, ছয়টি স্টেশন (চারটির ক্লাস-বি, দুটির ক্লাস-ডি) হবে- জুড়ী, দক্ষিণবাগ, কাঁঠালতলী, বড়লেখা, মুড়াউল ও শাহবাজপুর। ১৭টি বড় সেতু ও ৪২টি ছোট সেতু বা বক্স কালভার্ট নির্মাণ করা হবে।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ১৮৯৬ সালের ৪ ডিসেম্বর রেলওয়ের কুলাউড়া-শাজবাজপুর সেকশন চালু করা হয়। ভারত-বাংলাদেশের যোগাযোগের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ছিল এই পথটি। ১৯৫৮-৬০ সালে এই রেলপথটি পুনর্বাসন করা হয়। ২০০২ সালের ৭ জুলাই কুলাউড়া-শাজবাজপুর রেলপথ বন্ধ হয়ে যায়।

বাংলাদেশ রেলওয়ের কুলাউড়া-শাজবাজপুর সেকশন পুনর্বাসন প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৭৮ কোটি ৫০ লাখ ৭৯ হাজার টাকা। এর মধ্যে বাংলাদেশ সরকার দেবে ১২২ কোটি ৫২ লাখ ৩ হাজার টাকা, ভারতীয় লাইন অব ক্রেডিটের (এলওসি) মাধ্যমে সংস্থান হবে ৫৫৫ কোটি ৯৮ লাখ ৭৯ হাজার টাকা।

অনুষ্ঠানে রেলপথ মন্ত্রী বলেন, ‘এই প্রকল্পটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কালিন্দী রেল নির্মাণের কাছে আমার অনুরোধ থাকবে কাজটা যাতে তারা দ্রুত করেন এবং কাজের গুণগতমান যেনো ভাল হয়।’

অনুষ্ঠানে রেলপথ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ রেলওয়ে, ভারতীয় হাইকমিশন, কালিন্দী রেল নির্মাণ ও ভারতের এক্সিম ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিতি ছিলেন।

     More News Of This Category

ফেসবুকে আমরা

Archive Calendar

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com