,

গোলাপগঞ্জে শিক্ষক শ্রীঘরে

লায়েছুর রহমানের বিরুদ্ধে চাইনিজ কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে  মারাত্মক আহত করার অভিযোগে  তাকে প্রদান আসামী করে ৬জনের বিরুদ্ধে গোলাপগঞ্জ মডেল থানায় (গত ২৬ অক্টোবর) মামলা দায়ের করেন একই ইউনিয়নের লম্বাহাটি গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে আব্দুল মান্নান ( মামলা নং ১৬)। এই মামলার অন্যান্য আসামীরা হলেন- শিক্ষক লায়েছের আপন তিন ভাই লুৎফুর রহমান (৪০),জুবের আহমদ (৩০), নুরুর রহমান রুনু (৩৫) ও দুই জন চাচাতো ভাই মৃত আব্দুল আজিজের পুত্র দিলাল আহমদ (৩৫) ও গৌছ উদ্দিন (৫০)।

জানা যায়, ঘটনার কয়েকদিন পর বিদ্যালয় থেকে চিকিৎসা ছুটি নিয়ে দুই মাস দশ দিন পালিয়ে থাকার পর মঙ্গলবার সিলেটে সংশ্লিষ্ট বিচারিক  আদালতে মামলার অপর আসামী লায়েছের ভাই জুবের আহমদ , চাচাতো ভাই দিলাল আহমদ আত্মসমর্পন করে জামিন প্রার্থনা করলে সিলেটের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-১-এর বিচারক নজরুল ইসলাম ওই শিক্ষকের জামিন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

এ ব্যাপারে বাদী পক্ষের আইনজীবি মোতাহার আলীর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি কারাগারে প্রেরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গত ১১ অক্টোবর গোলাপগঞ্জ চৌঘরী বাজারে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট সংঘর্ষে জড়িয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক লায়েছুর রহমান চাইনিজ কুড়াল দিয়ে  মামলার বাদী আব্দুল মান্নানকে জখম করেন। একজন শিক্ষক চাইনিজ কুড়াল নিয়ে হামলায় জড়িয়ে পড়ার ঘটনায় উপজেলা জুড়ে নানা সমালোচনার জন্ম দেয়।

এদিকে গত ১৮ অক্টোবর এলাকাবাসী তাঁর বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ে একক প্রভাব বিস্তার, নানা অনিয়ম ও  বিতর্কিত কর্মকান্ড করার অভিযোগে তাকে ‘কুড়াল গুন্ডা’ আখ্যা দিয়ে শাস্তি দাবী করে সিলেটের জেলা প্রশাসক, জেলা শিক্ষা অফিসার , ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর  লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন এলাকাবাসী।

     More News Of This Category