উপশহরে ডাকাতির ঘটনায় বাসার সাবলেট জড়িত,আটক ৩

by salim

সিলেট নগরীর শাহজালাল উপশহরে ডাকাতির ২৪ ঘন্টার মধ্যেই তিন ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শাহপরাণ (রহ.) থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল কাইয়ূম চৌধুরীর নেতৃত্বে পৃথক অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে চৌকীদেখী থেকে এক ডাকাত ও লালাবাজার থেকে আরেক ডাকাতকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- ওসমানীনগর উপজেলার  কুরুয়ার মৃত মনির আহমদের ছেলে ইজাজ আহমদ ও এলোয়ান আহমদ এবং এলোয়ানের ব্যবসায়িক অংশীদার শাহীন আহমদ। তাদের কাছ থেকে লুটকৃত মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে।ইজাজা আহমদ ও এলোয়ান আহমদ আপন ভাই।তারা ঐ প্রবাসীর বাসায় ভাড়া সাবলেট হিসেবে ভাড়া থাকতেন।

পুলিশ জানায়, গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে উপশহরে যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুল মান্নান ও তার স্ত্রীকে হাত-পা বেঁধে গলায় সুপারি কাটার জাতা (সর্তা) ধরে প্রাণে হত্যার ভয় দেখায় ওই তিন জন। তারা ওই প্রবাসীর স্ত্রীর ব্যবহৃত ৬-৭ ভরি স্বর্ণালঙ্কার, হাতঘরি, আইফোন ব্র্যান্ডের দুটি মোবাইল সেট, ব্রিটিশ পাউন্ড ও নগদ সাড়ে ৮ হাজার টাকাসহ প্রায় ৪ লাখ ২৪ হাজার ১০০ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

পরে পুলিশ সাবলেট ইজাজ আহমদকে আটক করে। তিনি ডাকাতির ঘটনা স্বীকার করেন। তার তথ্য মতে তার ছোট ভাইসহ দুজনকে আটক করা হয়। এছাড়া তাদের কাছ থেকে লুটকৃত সমস্ত মালামাল উদ্ধার করা হয়।

উল্লেখ্য ,গত বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ওই বাসার মালিক আব্দুল মান্নানের ঘরের প্রধান দরজা দিয়ে ৪ জন যুবক এসে হুট করে ঢুকে যায়। এসময় বাসায় তার স্ত্রী এবং ভাড়াটির স্ত্রী ও ছোট্ট দুইটি বাচ্চা ছাড়া আর কেউ ছিলেন না। তখন ঘরে থাকা সকলকে একটি কক্ষে বেঁধে রেখে স্বর্ণ, নগদ টাকা এবং পাঁচটি মোবাইল ফোন, নগদ ১০হাজার টাকাসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায় ডাকাত দল। এসময় ডাকাতদের হামলায় আহত হন আব্দুল মান্নত ও মিনার বেগম। তাঁর দুজনই লন্ডন প্রবাসী।খবর পেয়ে পুলিশ ও র‌্যাব-৯ এর একটি টিম ঘটনাস্থলে পরিদর্শ করে যায়।

এদিকে সন্ধ্যা রাতে ডাকাতির ঘটনা এর  আগে কখনও উপশহরে ঘটেনি এমনটি জানিয়ে প্রতিবেশীরা স্থানীয় কাউন্সিলার এড. ছালেহ আহমদ সেলিম জানান ঘটনাটি রহস্য জনক।

Related Posts