গোলাপগঞ্জে ঘাতক ট্রাক্টর কেড়ে নিল এক শ্রমিকের প্রাণ

by sylhetmedia.com

এম আব্দুল জলিল: গোলাপগঞ্জে ঘাতক ট্রাক্টর কেড়ে নিল এক শ্রমিকের প্রাণ।সোমবার সকাল ৭ টার দিকে উপজেলার পৌর এলাকার এমসি কলেজ সংলগ্ন সিলেট-জকিগঞ্জ রোডে এ ঘটনাটি ঘটে।নিহত শ্রমিকের নাম মাজু মিয়া (৪০)। তিনি নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার মুলি গ্রামের রইছ মিয়ার পুত্র। বর্তমানে তিনি উপজেলার সদরের ছিটা ফুলবাড়ী  এলাকার বাবুল মিয়ার কলোনীতে বসবাস করে আসছিলেন। এ ঘটনার পর নিহতের পরিবারে নেমে এসেছে অমানিষার ঘোর অন্ধকার।

প্রত্যক্ষদর্শীও এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, সোমবার আনুমানিক সকাল সাড়ে ৭টায় প্রতিদিনের মতো মাটি টানার  ট্রাক্টরের সাথে গিয়েছিলেন কাজ করতে। এ সময় ট্রাক্ট্ররটি হেতিমগঞ্জে যাওয়ার পথে এমসি একাডেমী সংলগ্ন রাস্তার কাছে আসা মাত্র ট্রাক্টর থেকে মজু মিয়া ছিটকে নিচে পড়ে গেলে ট্রাক্টরের চাকায় পৃষ্ট হয়ে যায়। তাৎক্ষণিক সাথে থাকা অন্য শ্রমিকেরা আহত মাজু মিয়াকে স্থানীয় ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলে ডাক্তার থাকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্বার করে থানায় নিয়ে আসে।
 এ ঘটনার পর ট্রাক্টর ও ব্রিকফিল্ডের মালিক আবু বকর সহ অজ্ঞাত কয়েকজন ব্যক্তি নিহতের স্ত্রীর কাছে গিয়ে ”চালকের দোষ নেই” বলে মুচলেখা নিতে চাইলে উপস্থিত লোকজনের বাধাঁর মূখে তারা তা  করতে পারেনি। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়। নিহত মজু মিয়া স্ত্রী শিরিনা বেগম ছাড়াও দু’শিশু সন্তান শাহ আলম বাবু (৮) এবং বাদল আহমদ (৬) কে নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন।
নিহতের স্ত্রী শিরিনা বেগম জানান, তার স্বামী ছিলেন পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি। তিনি মারা যাওয়ার পর তাদের পরিবারে নেমে এসেছে অমানিষার ঘোর অন্ধকার। তাদের সংসার এখন কি ভাবে চলবে তিনি এখন ভেবে পাচ্ছেন না বলে জানান।
উল্লেখ যে, নিহতের বড় ছেলে শাহ আলম বাবু গোলাপগঞ্জ পৌর এলাকার রণকেলী মুহি উস সুন্নাহ হাফিজিয়া মাদ্রাসার নূরানি দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্র।
এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জে মডেল থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একে এম ফজলুল হক শিবলি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি।লাশ উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে।

Related Posts



cheap mlb jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseys