Home লিড নিউজ গ্যাসফিল্ডে চাকুরী দেবার নামে প্রতারণা

গ্যাসফিল্ডে চাকুরী দেবার নামে প্রতারণা

নিউজ ডেস্ক: বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ডে চাকুরী দেবার নামে সিভি সংগ্রহ করে বড় অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে কামরুল নামে এক প্রতারক।

এনিয়ে প্রতারণা শিকার ভুক্তভোগিরা তাকে কিছু বললে তিনি “ক্ষমতাসীন দলের লোক” পুলিশে ধরিয়ে দিবেন বলে হুমকি দেন।ফলে ভুক্তভোগিরা ভয়ে কিছু বলেন না। এ ব্যাপারে বিবিয়ানা গ্যাসফিল্ডের দায়িত্বে নিয়োজিত শেভরনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট লিখিত অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

জানাযায়, নবীগঞ্জ উপজেলার দীঘলবাক ইউপির কসবা গ্রামের আব্দুল মতিনের পুত্র কামরুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে শেভরনের এজেন্ট পাওয়ার ব্রীজ কোম্পানীতে লেবার
হিসাবে চাকুরী করে।

সেই সুযোগে শেভরনের বড় বড় কর্মকর্তাদের সাথেসখ্যতা গড়ে তোলে তাদের সাথে সেলফি তুলে ফেসবুকে পোষ্ট করে।

নিজেকে শেভরনের বড় কর্মকর্তা হিসাবে পরিচয় দেয়। ইদানিং সে শেভরনে লোক নিয়োগের প্রচার করে সিভি সংগ্রহ শুরু করে। এব্যাপারে রহিম আলী নামে এক ব্যক্তি জানান, তিনি সিভির সাথে তাকে ১০ হাজার টাকা দেন, এভাবে তার সাথে আরো পাঁচজন ১০ হাজার টাকা করে দিয়েছেন। এভাবে অনেকের কাছে থেকে সে টাকা
নিয়েছে। র্দীঘ এক বছর অতিবাহিত হলেও কোন চাকুরী হয়নি। তিনি টাকা ফেরত চাইলে তাকে কামরুল হুমকি দিয়ে বলে আমি টাকা উপরে বড় নেতার কাছে পাঠিয়েছি। বেশি কথা বললে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দিবো। তাই আমি ভয়ে কিছু বলি নাই। শেভরণ কে লিখিতভাবে জানিয়েছি। এভাবে অসংখ্য অভিযোগ পাওয়া গেছে কামরুলের বিরুদ্ধে। সে গ্যাসফিল্ড এলাকায় প্রায় ৫০ জনের কাছে থেকে সিভি সংগ্রহ করেছে। তাদের কাছে কত টাকা করে আদায় করেছে তার সঠিক হদিস পাওয়া যায়নি।

এব্যাপারে শেভরনের এজেন্ট পাওয়ার ব্রীজ কোম্পানীতে লেবার কামরুল ইসলাম বলেন, আমি সিভি নিলেও টাকা নেইনি। টাকার নেয়ার এসব অভিযোগ মিথ্যা তার কোন হদিস নেই।

এব্যাপারে শেভরন বাংলাদেশ এর ম্যানেজার কমিউনিটি অ্যাফেয়ার্স ওবায়দুল্লাহ আল এজাজ বলেন, আমি এ ব্যাপারে এখন কোন মন্তব্য করবো না।

শেভরন বাংলাদেশ এর সহকারী ম্যানেজার(মিডিয়া) সাবরিনা রহমানের সাথে বারবার যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।