Home লিড নিউজ নগরীতে দিনের বেলাও চলে ট্রাক
লিড নিউজ - সিলেট - অক্টোবর ৯, ২০১৯

নগরীতে দিনের বেলাও চলে ট্রাক

নিউজ ডেস্ক: নগরীতে যানজট নিরসন ও দুর্ঘটনা এড়াতে দিনের বেলা ট্রাক-বাস প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা মানা হচ্ছে না। আইন লঙ্ঘন করে এসব মালবাহী গাড়ী চলাচলের কারণে সৃষ্টি হচ্ছে যানজট। নিষেধাজ্ঞার মাঝেও দিনরাত নির্বিঘ্নে চলছে বাস-ট্রাক ও লরি। পাশাপাশি ছোট-বড় সব সড়কে মালবাহী গাড়ী বেপরোয়া গতিতে চলাচলের ফলে অহরহ দুর্ঘটনা ঘটছে।

নগরীর বিভিন্ন পয়েন্ট ঘুরে দেখা গেছে, দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের সামনে দিয়েই চলাচল করছে বালু, পাথর, রড ও পণ্যবাহী ট্রাক এবং লরি। অন্যান্য নির্মাণ সামগ্রীবাহী ট্রাকও চলছে দেদারছে। কিন্তু এসব ট্রাকের দিকে নজর না দিয়ে মোটরসাইকেল ধরপাকড়ে ব্যস্ত পুলিশ। নিষোধাজ্ঞা সত্বেও দিনের বেলা এসব ট্রাক চলে কিভাবে তা নিয়ে প্রশ্ন অনেকের।

এসএমপি অধ্যাদেশ অনুযায়ী, সকাল ৮টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত নগরীর রাস্তা দিয়ে ট্রাকসহ ভারী যানবাহন চলাচলের সুযোগ নেই।

দুপুর ও বিকেলে মহানগরীর প্রবেশপথ হুমায়ুন রশীদ চত্ত্বর, উপশহর পয়েন্ট, সোবহানীঘাট, নাইওরপুল রোড, বন্দরবাজার, কোর্ট পয়েন্ট, শাহী ঈদগাহ-আম্বরখানা রোড ঘুরে দেখা গেছে, সড়কের দুই পাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে সিএনজিচালিত অটোরিকশা, লেগুনা। মাঝখান দিয়ে চলছে মালবাহী ট্রাক।

নগরবাসীর অভিযোগ, ট্রাফিক পুলিশকে ম্যানেজ করে নিজেদের খেয়াল-খুশিমত দিনভর নগরীতে ট্রাকসহ অন্যান্য ভারী যানবাহন চালাচ্ছে চালকরা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, ট্রাফিক পুলিশের সহায়তা ছাড়া দিনের বেলা পণ্যবাহী ট্রাক চলাচল সম্ভব নয়। নগরীর প্রবেশ পথগুলো এবং বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে ট্রাফিক পুলিশ প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করছে। তাদেরকে টাকা দিলেই গাড়ি চলতে আর বাধা থাকে না। তাদের অভিযোগ, মাসোহারা দিয়ে প্রতিনিয়ত দিনের বেলায় চলছে ট্রাক।

তবে এসএমপির উপ-কমিশনার (ট্রাফিক) ফয়ছল মাহমুদ বলেন, নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ভারী যানবাহন চলাচলের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। যেসব ট্রাক চলেছে সেসব ট্রাক হয়তো বিভিন্ন জায়গায় লুকিয়ে ছিলো।