পাত্রী দেখতে গিয়ে করোনা সন্দেহে নাজেহাল যুবক

by sylhetmedia.com

নিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাস দিন দিন ব্যাপক ধারণ করছে। এবার বিয়ের জন্য পাত্রী দেখতে গিয়ে গণরোষের স্বীকার হন যুবক।

বিয়ের জন্য পাত্রী দেখতে গিয়েছিলেন সম্প্রতি সিঙ্গাপুরফেরত এক যুবক। কিন্তু পাত্রীর গ্রামে গিয়ে ব্যাপক গণরোষের মুখে পড়তে হয়। একপর্যায়ে গ্রামবাসী যুবকটিকে আটকে পুলিশে সোপর্দ করেন। চারদিকে চলমান করোনা আতঙ্কের মধ্যে এমনটাই ঘটেছে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও এলাকায়। বিদেশফেরত ওই যুবক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত এ আতঙ্কের জেরেই মূলত এমন ঘটনা ঘটেছে।

মঙ্গলবার (১৭ মার্চ) সকালে সোনারগাঁওয়ের মোগরাপাড়া ইউনিয়নের ভৈরবদী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী যুবকের নাম জগন্নাথ (৩৫)।

এলাকাবাসী জানান, এক মাস আগে সিঙ্গাপুর থেকে দেশে ফেরেন কুমিল্লার দাউদকান্দি গ্রামের হরিদাসের ছেলে জগন্নাথ। সম্প্রতি তিনি ভৈরবদি গ্রামে তার আত্মীয় হরি কিশোরের বাড়িতে বেড়াতে যান। কিন্তু গ্রামের মানুষ সেভাবে তার উপস্থিতি খেয়াল করেননি। এরই মাঝে মঙ্গলবার সকালে আত্মীয়-স্বজন নিয়ে বিয়ের জন্য পাত্রী দেখতে গ্রামেরই এক মেয়ের বাড়িতে যান জগন্নাথ। এসময় গ্রামের লোকজন পাত্র সম্প্রতি সিঙ্গাপুর থেকে ফিরেছেন শুনে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন। এবং যুবকটিকে করোনা রোগী সন্দেহে আটকে রাখেন। পরে সোনারগাঁও থানা পুলিশকে খবর দিলে তারা গিয়ে নিজেদের হেফাজতে জগন্নাথকে উদ্ধার করেন ও করোনা হয়েছে কিনা পরীক্ষার জন্য জগন্নাথকে রাজধানীর মহাখালীতে পাঠায়।

এ ব্যাপারে সোনারগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান বলেন, এক যুবক সোনারগাঁওয়ে বেড়াতে এলে এলাকাবাসী করোনা সন্দেহে বাড়ি ঘিরে রেখে পুলিশে খবর দেন। পরে পুলিশ ওই যুবককে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠায়।

Related Posts