পুলিশ দেখে বরের পলায়ন

by sylhetmedia.com

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের রাজনগরের সফাতপুর গ্রামে বাল্যবিবাহ পন্ড করে দিয়েছে প্রশাসন। পুলিশ দেখে মঞ্চ থেকে পালালেন বর।

সোমবার বিকাল ৩টায় উপজেলার উমরপুর কমিউনিটি সেন্টারে ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সৌদিআরব প্রবাসী সাজু আহমদরে (২৫) বিয়ে ঠিক করা হয়েছিল ফতেহপুর ইউনিয়নের জাহিদপুর গ্রামের আরেক সৌদিআরব প্রবাসী ইসলাম মিয়ার মেয়ের সঙ্গে (১৬)।

কনের পক্ষ থেকে অতিথিদের জন্য কমিউনিটি সেন্টারে রান্না করা হয়েছে গরু-খাসির গোশত্। কিন্তু সৌদিপ্রবাসীর ওই মেয়েকে অপ্রাপ্ত বয়সে বিয়ে দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ আসে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ শরিফুল ইসলামের কাছে।

তিনি রাজনগর থানার ওসি ও উত্তরভাগ ইউনিয়নের চেয়ারম্যানকে ফোন করে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করার নির্দেশ দেন।

রাজনগর থানার ওসি (তদন্ত) গোলাম সরওয়া উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাজিব হোসেনকে পাঠান ওই কমিউনিটি সেন্টারে। তিনি কমিউনিটি সেন্টারে গিয়ে দেখেন বিয়ের আয়োজন শেষ। অতিথিরাও খাবারের জন্য এসে গেছেন। এদিকে পুলিশ খোজ করে বরের। এসময় বর সাজু আহমদ কমিউনিটি সেন্টারে যাওয়ার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে বর পালিয়ে যান। পুলিশ থেকে বাঁচতে তিনি কুশিয়ারা নদী পাড় হয়ে চলে যান বালাগঞ্জ উপজেলায়।

পরে ১৮ বছরের আগে তার মেয়েকে বিয়ে দেবেন না বলে লিখিত দেন কনের মা আয়শা বেগম।

উপ-পরিদর্শক এসআই রাজিব হোসেন বলেন, আগেরদিন রাতেই চেয়ারম্যান ও মেম্বারের মাধ্যমে বিয়ে বন্ধ করে দেয়ার জন্য বলা হয়েছিল। কিন্তু এরপরও তারা বিয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছিল বলে পুলিশের কাছে খবর আসে। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়।

রাজনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ শরিফুল ইসলাম বলেন, জন্ম সনদে বয়স টেম্পারিং করে বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। পরে অভিযোগ পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে ব্যালবিয়ে বন্ধ কের দেয়া হয়। ১৮ বছরের আগে মেয়ের বিয়ে দিবেন না বলে কনের মা মুছলেকা দিয়েছেন।

Related Posts



cheap mlb jerseyscheap nfl jerseyscheap mlb jerseyscheap nhl jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseyscheap jerseys