মুহাম্মদ আল আমিন এর একগুচ্ছ কবিতা

by sylhetmedia.com

🥀জিজ্ঞাসা
———————-

কতটা মেঘ জমলে বৃষ্টি হয়ে পরে?
কতটা দুঃখ জমলে অশ্রু হয়ে ঝরে?
কত রাত নির্ঘুম থাকলে কষ্ট বলি তাকে
কতটা পথ পারি দিলে শেষ বলি তারে?

কতটা কাছে গেলে প্রিয় বলি তারে?
হ্নদয় হতে হ্নদয় টেনে বাঁধি বাহুডোরে
কতটা প্রাপ্তি হলে তুষ্টি মেলে তবে?
মিছে মায়া বিদায় কালে পা জড়িয়ে ধরে!

কতটা রিক্ত হলে সহ্য সীমা বাড়ে?
বুকে জড়িয়ে শূন্যতা চুম দিয়ে যায় ঘারে
কতটা পাথর বুকে নিঃসঙ্গতা কাঁদে?
কতটা বিভ্রান্তিতে ভালবাসা যায় ছেড়ে!

কতটা শোকের পরে চোখগুলো যায় মরে?শীতলতায় চোখের ভিতর কষ্ট শুধু নড়ে?
কতটা অনুতাপে স্মৃতির পাতা কাঁদে?
ক্ষতে ক্ষতে সহবাসে ব্যথা শুধু বাড়ে!

হতাশা কুইন আপা ছাড়া এই কবিতাটি এত সুন্দর করা যেতনা। আপুর প্রতি অনেক কৃতজ্ঞতা।

🥀অভিমানি ঘুম
————————-

এই গভীর রাতে কেন অভিমান করছিস তুই?
তুই ভালো করেই জানিস্,
তোর অবর্তমানে নির্লজ্জ স্মৃতিরা
মৌমাছির মতো আমাকে ঘিরে ধরে!
আচ্ছা! কেউ তো আমার সাথে অভিমান করে না!
তুই কেন করিস?
তোর মাধ্যমে আমি স্বপ্ন দেখি।
তাই রাগ করছিস বুঝি?
আমাকে খুব কাছের ভাবিস নাকি?
আমার অবহেলা সয্য করতে না পেরে অভিমান করছিস?
চলে আয় অভিমানি ঘুম আমার,
এই স্মৃতির অত্যাচার থেকে আমাকে মুক্ত কর।
তোকে আর উপেক্ষা কর্বনা।
তোকে কষ্ট দিয়ে মিথ্যে স্বপ্ন আর সাজাবনা!
আমার চোখের পাতাটা একবার ছুঁয়ে যা সোনা…..

🥀ক্ষণিকের আপন
——————
কোন এক জোৎস্না রাতে কথা হচ্ছিল চাঁদের
সাথে।
তার রূপে পৃথিবী ঝলমল করছিলো,
খানিকটা জোৎস্না গায়ে মেখে নিয়েছিলাম।
দেখতেছিলাম অপলক দৃষ্টিতে
চোখে চোখে অনেক কথাও হয়েছিলো!
যেভাবে কষ্টের কথাগুলো শুনছিলো
মনে হচ্ছিলো কতো আপন!
ভাবছিলাম সে মনে হয় আমার সঙ্গী হবে!
কিন্তু ভোর হওয়ার আগেই আমায় ফাঁকি
দিলো।
অল্পক্ষণে আপন হয়ে ক্ষাণিক সময়ে হারিয়ে
গেলে,
এতসময় কষ্ট লাগে কেন?

🥀তুমি আমার
—————

তুমি আমার আমৃত্যু দীর্ঘশ্বাস,
নিদ্রাহীন গভীর রাতের অবিরত অশ্রুপাত।
তুমি আমার বুকের ভিতরে জমে থাকা কষ্টের মেঘ;
যত্নে আঁকা শত স্বপ্নের ধ্বংসাবশেষ।
তুমি আমার চৈত্রের খরা, ফাগুন শেষে।
তান্ডবে লন্ডভন্ড প্রকৃতি, কালবৈশাখীর বেশে।
তুমি আমার সোনালী স্মৃতির সমষ্টি,
কষ্টের মেঘ থেকে জ্বরে পরা একরাশ বৃষ্টি।
তুমি আমার পূর্ণিমায় লাগা চন্দ্রগ্রহণ,
হৃদয় দহনে সৃষ্ট তীব্র কষ্ট নীরবে সহন।
তুমি আমার বিরহের সুর গানের মাঝে,
লেপ্টে থাকা হতাশা কবিতার ভাঁজে ভাঁজে।
তুমি আমার না বলা হাজার কথামালা;
বিষন্ন মনে স্মৃতির সনে একলা পথচলা।

🥀সুখের সন্ধান
——————
রাতের অন্ধকার কেটে ভোর হল
শিশির কণা মুক্তার রূপ ধরল
সূর্য সরাচ্ছে কোয়াশার আধার
আমি হেটে হেটে বিস্তির্ণ প্রান্তর
করছি পার।
হিম শিশিরের বাধা পেরিয়ে
শ্যামলীময় উদ্যান ছাড়িয়ে
আমি ছুটে চলেছি, কেবল ছুটছি
এদিক ওদিক চোখ ভূলিয়ে সুখের
সন্ধান করছি।
সমুদ্রের তরঙ্গে, পাহাড়ের সবুজে
সুখ নাহি পাই, এলাম মরুভূমি মাঝে
সূর্যের যৌবন উত্তাপে, পিপাসার্ত
বোকে
ক্ষুধার্ত পেটে ক্লান্ত দেহে হঠাৎ
ঘুম এল চোখে
স্বপণে দেখি কে যেন এসে, পাশে
বসে
কানে কানে বলল কথা ক্ষাণিক
হেসে হেসে।
তার কণ্ঠ সুধা আহার করি কর্ণ দিয়ে
মোর
মনে এল মধুর শান্তি, ক্লান্তি হল দূর।
জেগে ওঠে তাকেই খুজি, স্বপ্নে
ছিল কে?
সুখত কেবল তার ছোয়াতে, শান্তি
তাহার চোখে।

Related Posts