Home লিড নিউজ রাত ১১টার মধ্যে শাবির মূল ফটকের দোকান বন্ধের নির্দেশ
লিড নিউজ - সিলেট - অক্টোবর ১, ২০১৯

রাত ১১টার মধ্যে শাবির মূল ফটকের দোকান বন্ধের নির্দেশ

নিউজ ডেস্ক: নিরাপত্তার ইস্যুতে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সংলগ্ন দোকানগুলো রাত ১১টার মধ্যে বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে জালালাবাদ থানা পুলিশ। আর পুলিশের এ সিদ্ধান্তে বিপাকে পড়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থী ও প্রধান ফটকের ব্যবসায়ীরা। পুলিশের এমন সিদ্ধান্তকে অযৌক্তিক বলে দাবি করেছেন তারা।

এ বিষয়ে পরিসংখ্যান বিভাগের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ উসমান বলেন, ‘শহরে টিউশনি শেষে অনেকের ফিরতে দেরি হয়ে যায়। তাদের খাওয়া হয় প্রধান ফটকের বিভিন্ন হোটেল-রেস্তোরাঁয়। এছাড়া রাতে অনেক শিক্ষার্থী শিটপত্রসহ অন্যান্য একাডেমিক কাজ সারেন ফটকের বিভিন্ন স্টেশনারি দোকানে। এ অবস্থায় পুলিশের এমন সিদ্ধান্তে শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়বেন।’

প্রধান ফটকের পাশের তপোবন আবাসিক এলাকার মেসের শিক্ষার্থী আফসারুল করিম বলেন, ‘ক্লাস-পরীক্ষা শেষে অনেকেই গেটে বসে আড্ডা দেন। আবার অনেকে একাডেমিক কাজও সারেন। তাই আমি মনে করি পুলিশের সিদ্ধান্ত পুরোপুরি অযৌক্তিক।’

শাবির মূল ফটকের এক ব্যবসায়ী নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, ‘আমাদেরকে রাত ১১টার মধ্যে দোকান বন্ধ করতে চাপ দেওয়া হচ্ছে। পুলিশের হয়রানির ভয়ে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে রেস্টুরেন্ট বন্ধ করতে বাধ্য হচ্ছি।’

অপর এক দোকানি বলেন, ‘কয়েক মাসের ব্যবধানে মূল ফটকে বেশ কয়েকটি দোকানে চুরি হয়েছে। এর প্রেক্ষিতে এখানকার মালিক সমিতি মিলে আমরা থানাতে বিষয়টি অবগত করে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করি। পরে নিরাপত্তার স্বার্থে ১১টার মধ্যে দোকান বন্ধের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটক সংলগ্ন মেস, তপোবন ও সুরমা আবাসিক এলাকা, বিজিবি গেট, মদিনা মার্কেট, নয়া বাজারসহ আশপাশের বিভিন্ন মেসে শিক্ষার্থীরা থাকেন। তারা অধিকাংশ সময়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রধান ফটকে অবস্থিত নিউ গোলাপী রেস্টুরেন্ট, জাকারিয়া রেস্টুরেন্ট, সাতকরা, মেজবানি ও বিসমিল্লাহ রেস্টুরেন্টে রাতের খাবার খান। একাডেমিক কাজ ও একসঙ্গে মিলে আড্ডাতেও অনেক সময় গেটে অবস্থান করেন তারা।

এছাড়া আবাসিক হলের শিক্ষার্থীরাও এখানে অনেক রাত পর্যন্ত অবস্থান করেন। তবে বিগত এক সপ্তাহ ধরে রেস্টুরেন্টগুলো রাত ১১টার মাঝে পুলিশের নির্দেশনায় বন্ধ করে দিচ্ছেন দোকানদাররা। ফলে বিপাকে পড়ছেন শিক্ষার্থীরা।

জালালাবাদ থানার ওসি ওকিল উদ্দিন বলেন, রাত সাড়ে ১১টার পর গেটে দোকান খোলা রাখার কোনও যৌক্তিকতা নেই। সার্বিক নিরাপত্তার স্বার্থে ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে দোকান বন্ধের কোনও সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দায়িত্ব নিলে বা খোলা রাখতে বললে আমরা সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করবো।

বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার ইশফাকুল হোসেন বলেন, এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে কোনও ধরনের নির্দেশনা পুলিশকে দেওয়া হয়নি। পরে এ বিষয়ে প্রক্টরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলেন তিনি।

প্রক্টর অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমদ বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনও ধরনের নির্দেশনা পুলিশ প্রশাসনকে দেওয়া হয়নি। দেশের সার্বিক নিরাপত্তা ও পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনায় হয়তো এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।’ তবে খাবার দোকানগুলো ও অন্য স্টেশনারি দোকানগুলো খোলা রাখার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে কথা বলা হবে।