Home উল্লেখযোগ্য সাইবার নিরাপত্তায় কতটুকু নিরাপদ আপনার পাসওয়ার্ড?

সাইবার নিরাপত্তায় কতটুকু নিরাপদ আপনার পাসওয়ার্ড?

 কারও পরিচয় যাচাই করে লগইন করতে বহুল প্রচলিত অথেন্টিকেশন পদ্ধতি হলো পাসওয়ার্ড বা গুপ্তচাবি। এটা এমন এক শব্দ, যা আপনি ছাড়া আর কারও জানার কথা না। কাজেই আপনার ইউজার নেইমের সঙ্গে পাসওয়ার্ড কী তা যে জানবে, সিস্টেম ধরে নিবে সেটাই আপনি। কারণ এ গোপন পাসওয়ার্ড কেবল আপনিই জানেন।থিওরেটিকালি, ঠিক আছে। কিন্তু আমি সব সময়েই যেটা বলি, নিরাপত্তা আসলে কারিগরি সমস্যা না, এটা হলো মানবীয় সমস্যা। ভেজাল সেখানেই। আমরা মানুষেরা পাসওয়ার্ডের ব্যাপারে বড়ই সমস্যায় পড়ে যাই। কারণ পাসওয়ার্ডের ক্ষেত্রে দুটি পরস্পর বিরোধী শর্ত এক সঙ্গে প্রয়োগ করতে হয় (১) এটা খুব জটিল ও গোপন হবে যাতে কেউ সেটা আন্দাজ করে ফেলতে না পারে এবং (২) এটা আপনি নিজে সহজে মনে রাখতে পারবেন।এইখানেই সমস্যা!

যে কোনো ইউজারের মোটামুটি শ’খানেক পাসওয়ার্ড মনে রাখার দরকার হতে পারে। এত পাসওয়ার্ড মনে রাখা অসম্ভব। তাই যেটা বাস্তবে ঘটে তা হলো- ইউজারেরা খুব সহজ একটা পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেন, সবখানে একই পাসওয়ার্ড ব্যবহার করেন এবং পাসওয়ার্ডটা কাগজে লিখে কম্পিউটারের পাশে টাঙিয়ে রাখেন।সিকিউরিটি গবেষকেরা পাসওয়ার্ড কে কী রকম ব্যবহার করে তা নিয়ে গবেষণা করে দেখেছেন, বিশাল সংখ্যক মানুষ নিচের পাসওয়ার্ডগুলাে হরদম ব্যবহার করেন।123456
12345678
password
1234
qwerty
asdfghjk

অমুক৯৫ টাইপের- যেখানে অমুক হলো নাম আর ৯৫ হলো তার জন্মসাল।ইত্যাদি ইত্যাদি।অনেকে আবার পাসওয়ার্ডকে পাকাপোক্ত করতে শেষে একটা সংখ্যা লাগান। যেমন helpme1. letmein1. password1. এইটাও আসলে বোকামী কারণ অধিকাংশ মানুষ এখানে সংখ্যা হিসাবে ১ বা ১২৩ এরকম কিছুই ব্যবহার করেন।আপনার একাউন্টে যদি এ রকম কিছু ব্যবহার করেন, তাহলে কিন্তু আপনার একাউন্ট হ্যাক করা খুবই সহজ কাজ। এখন বেশ কিছু পাসওয়ার্ড ক্রাকার প্রোগ্রাম পাওয়া যায়, যা দিয়ে এ রকম সহজ পাসওয়ার্ড কয়েক সেকেন্ডেই ভেঙে ফেলা যায়।অনেক লম্বা শব্দ ব্যবহার করেও বাঁচবেন না, কারণ অভিধানে আছে এমন সব শব্দ এসব ক্রাকার টুল ব্যবহার করে।তাহলে উপায়?হ্যাঁ, উপায় আছে। তা হলো অভিধানে আছে এ রকম কোনো শব্দ ব্যবহার না করা। যেমন আপনার পাসঅয়ার্ড যদি হয় এ রকম YFsrdgfg534!#5 তাহলে কিন্তু সেটা কারো পক্ষে আন্দাজে ঢিল ছুড়ে বের করা হবে প্রায় অসম্ভব।কথা হলো এ বিদঘুটে পাসওয়ার্ড মনে রাখবেনই বা কী করে? সেজন্য আপনাকে আসলে একটু ফর্মুলা ব্যবহার করতে হবে। আপনার প্রিয় গান কী?ধরা যাক আপনার প্রিয় গান হলো “বেদের মেয়ে জ্যোসনা আমায় কথা দিয়েছে, আসি আসি বলে জ্যোসনা ফাঁকি দিয়েছে”। ইংরেজিতে লিখলে beder meye josna amay kotha diyechhe, ashi ashi bole josna faki diyeche. পাসওয়ার্ড মনে না থাকলেও এই গান তো আপনার মনে আছে, তাই না? তাহলে এ গানের প্রতিটা শব্দের প্রথম অক্ষরগুলাে নেন।bmjakdaabjfdএর সাথে নানা জায়গায় নানা সংখ্যা যোগ করেন। এমন সংখ্যা যা আপনার মনে রাখা সহজ। যেমন মুস্তাফিজের সাম্প্রতিক রেকর্ড (কয় উইকেট নিয়েছিল, মনে আছে? ৫। সেটা যোগ করেন যে কোনো জায়গায়, যেটা সহজে মনে রাখতে পারবেন।bm5jakdaabjfdব্যস হয়ে গেলো জটিল একটা পাসওয়ার্ড। আপনি মনেও রাখতে পারবেন সহজে, কারণ আপনার প্রিয় গান ও প্রিয় বোলারের সাথে জড়িত এইটা। আর নানা ব্রুট ফোর্স ক্রাকারেরা ডিকশনারি গিলে ফেললেও এ বিদঘুটে শব্দাবলী কখনো সহজে আন্দাজ করতে পারবে না।আরেকটা ভালো পরামর্শ হলো পাসওয়ার্ড ম্যানেজার ব্যবহার করা, যেমন lastpass, যাদের কাজ হলো আপনার পাসওয়ার্ড সুরক্ষিত করে রাখা।আসুন, পাসওয়ার্ডভিত্তিক লগইন সিস্টেমকে সুরক্ষিত করি- খুব সহজ এ কাজগুলাে করার মাধ্যমে।