Home লিড নিউজ সিলেটে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হল কল সেন্টার ৩৩৩

সিলেটে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হল কল সেন্টার ৩৩৩

নিউজ ডেস্ক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের কারনে নাগরিক সুযোগ-সুবিধা এখন মানুষের হাতের মুঠোয়।

দেশের যেকোনো নাগরিক যেকোনো মুঠোফোন কিংবা ল্যান্ড ফোন থেকে ৩৩৩ এবং প্রবাসীগণ ০৯৬৬৬৭৮৯৩৩৩ নম্বরে কল করে সরকারি সেবা প্রাপ্তির পদ্ধতি, জনপ্রতিনিধি ও সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে যোগাযোগের তথ্য, পর্যটনের জন্য আকর্ষণীয় স্থান এবং বিভিন্ন জেলা সম্পর্কে তথ্য জানার সুযোগ পাচ্ছেন।

তিনি বলেন প্রবাসীদের দোরগোড়ায় কনস্যুলার ও কল্যাণ সেবা পৌঁছে দিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় চালু করেছে মোবাইল অ্যাপ। এর নাম ‘দূতাবাস’। কনস্যুলার ও কল্যাণ সেবা গ্রহণের পাশাপাশি এই অ্যাপ দিয়ে দালালদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেয়া যাবে। ব্যবস্থা নেয়া যাবে মানবপাচার রোধে।

সরকারি বিভিন্ন তথ্য সেবা, কর্মকর্তাদের তথ্য, বিভিন্ন সামাজিক সমস্যার প্রতিকার এবং পর্যটন ও জেলা সম্পর্কিত যেকোন তথ্য যেকোন সময় সকল নাগরিকদের পৌঁছে দিতে সিলেটে আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হল কল সেন্টার ৩৩৩।
আজ (৯ নভেম্বর) রিকাবীবাজারস্থ কবি নজরুল মিলনায়তনে সকাল ১১টায় ৩৩৩ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা কালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন এসব কথা বলেন।

সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মো: মোস্তাফিজুর রহমান পিএএ, সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেট রেঞ্জের ডিআইজি কামরুল আহসান বিপিএম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পরিতোষ ঘোষ।

বিভাগীয় কমিশনার মো: মোস্তাফিজুর রহমান, পিএএ, বলেন, সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের এটুআই প্রকল্পের সহযোগিতায় নাগরিকদের জন্য সরকারের কেন্দ্রীয় তথ্য, সেবা ও অভিযোগ-প্রতিকার ব্যবস্থাপনা বাস্তবায়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় ২০১৮ সালের ১২ এপ্রিল ৩৩৩ কল সেন্টারের উদ্বোধন করেছিলেন। এর ধারাবাহিকতায় আজ সিলেটে এই কল সেন্টারের আনুষ্ঠিানিক যাত্রা শুরু করলো।

সভাপতির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম বলেন, ‘৩৩৩’ এই কল সেন্টারের মাধ্যমে নাগরিকগণ বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং ও খাদ্যে ভেজালের প্রতিকার, সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগের তথ্য, ইসলামিক মাসআলা-মাসায়েল, নিরাপদ অভিভাসন সংক্রান্ত তথ্য ও অভিযোগ, ই-টিআইএন সংক্রান্ত তথ্য, আবহাওয়া তথ্যসহ মোট ১০৬ সেবা পাবেন।

অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে উপস্থিত সূধিজনের বক্তব্য এবং পরামর্শ নেয়া হয়। এতে বক্তব্য রাখেন সাংবদিক নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা , জনপ্রতিনিধি এবং গণমাধ্যমের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।